Skip to content

অ্যাম্বুলেন্সে করে প্রতিবাদ সভায় গুলিবিদ্ধ সেই চেয়ারম্যান | বাংলাদেশ

অ্যাম্বুলেন্সে করে প্রতিবাদ সভায় গুলিবিদ্ধ সেই চেয়ারম্যান | বাংলাদেশ

<![CDATA[

নরসিংদীর শিবপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের দীর্ঘ ২৫ বছরের সাবেক সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. হারুন অর রশীদ খানকে গুলি করে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামিদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবিতে প্রতিবাদ সভা ও দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্সে এসে ওই প্রতিবাদ সভায় যোগ দেন খোদ গুলিবিদ্ধ চেয়ারম্যান হারুন অর রশীদ।

মঙ্গলবার (২১ মার্চ) বিকেলে ইটাখোলা গোলচত্বরে উপজেলা আ.লীগের উদ্যোগে এ প্রতিবাদ সভা করা হয়। ঢাকা মেডিকেলে চিকিৎসাধীন গুলিবিদ্ধ উপজেলা চেয়ারম্যান ও আওয়ামী লীগ নেতা হারুন অ্যাম্বুলেন্সে করে এসে প্রতিবাদ সভায় যোগ দেন এবং হুইল চেয়ারে বসে দলীয় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বক্তব্য দেন।

হারুন অর রশিদ খান বলেন, ‘হত্যার উদ্দেশ্যে আমার বাসায় ঢুকে আমাকে গুলি করার দুঃসাহস তারা কোথা থেকে পেয়েছে? তারা কার সঙ্গে চলাফেরা করেন, আপনারা সব জানেন। আল্লাহর অশেষ রহমতে আমি বেঁচে আছি।’

তিনি সুস্থতার জন্য সকলের দোয়া চেয়ে বলেন, ‘কারা আমাকে বাসায় ঢুকে গুলি করেছে, তারা চিহ্নিত হয়েছে। অস্ত্র সরবরাহকারী ও মদদদাতাদের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী শনাক্ত করেছে। তারা এমপি জহিরুল হক মোহন ও তার ভাই জুনায়েদুল হক জুনুর আশ্রয়-প্রশ্রয়ে থেকে অতীতেও অনেক সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড ও অপকর্ম করেছে। এখন প্রভাব খাটিয়ে আমাকে হত্যাচেষ্টার মামলাটি ভিন্নখাতে নেয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। যারা আমার ওপর গুলির প্রতিবাদে সরব, তাদেরকে হয়রানির চেষ্টা করছে।’

আরও পড়ুন: নরসিংদীতে উপজেলা চেয়ারম্যানকে হত্যাচেষ্টা মামলার আসামি গ্রেফতার

তিনি আরও বলেন, ‘আমার ভাই প্রয়াত এমপি শহীদ রবিউল আউয়াল খান কিরণ হত্যা ও সন্ত্রাসের রাজনীতি করেননি। আমরাও সন্ত্রাসের রাজনীতি করি না। আমি গুলিবিদ্ধ হওয়ার পরও হাসপাতালে থেকে বলেছি এমন কোনো কাজ করা যাবে না, যাতে জনগণের ক্ষতি হয়। আপনারা যদি আন্দোলন করতে চান তাহলে শান্তিপূর্ণ আন্দোলন করবেন।’

উপজেলা আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. মুহসীন নাজিরের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক সামসুল আলম ভূঁইয়া রাখিলের সঞ্চালনায় প্রতিবাদ সভায় অন্যদের মাঝে উপস্থিত ছিলেন সাবেক সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি সিরাজুল ইসলাম মোল্লা, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আ.ফ.ম মাহবুবুল হাসান, জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মোন্তাজ উদ্দিন ভূঁইয়া, আমিরুল ইসলাম ভূঁইয়া, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল কবির শাহিদ, কোষাধ্যক্ষ মাহফুজুল হক টিপু, শিবপুর পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি খোকন ভূঁইয়াসহ বিভিন্ন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সংগঠনের নেতাকর্মীরা।

আরও পড়ুন: নরসিংদীতে বাসায় ঢুকে চেয়ারম্যানকে গুলির ঘটনায় মামলা

সভায় উপস্থিত নেতাকর্মীরা হারুন অর রশীদ খানের দলীয় অব্যাহতি প্রত্যাহার ও গুলির ঘটনায় জড়িত ও মদদদাতাদের দল থেকে বহিষ্কারের জন্য উপজেলা ও জেলা আওয়ামী লীগের প্রতি দাবি জানান।

শিবপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি, বীর মুক্তিযোদ্ধা মো. হারুন অর রশীদ খানকে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি সকালে শিবপুর সদরের বাজার রোডের নিজ বাসায় ঢুকে গুলি করে গুরুতর আহত করে দুর্বৃত্তরা।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *