Skip to content

ঈদের দ্বিতীয় দিনেও রাজধানীতে কোরবানি দিলেন অনেকে | বাংলাদেশ

ঈদের দ্বিতীয় দিনেও রাজধানীতে কোরবানি দিলেন অনেকে | বাংলাদেশ

<![CDATA[

কেউ কেউ পারিবারিক ঐতিহ্য রক্ষা করতে আর কেউ প্রথম দিন কসাই না পেয়ে বাধ্য হয়েছেন আজ (শুক্রবার) ঈদের দ্বিতীয় দিনে কোরবানি দিতে। আল্লাহর সন্তুষ্টি লাভের আশায় রাজধানীতে পশু কোরবানি দেয়া এসব ধর্মপ্রাণ মুসলমানের বেশিরভাগই ঈদের দিন ভুগেছেন কসাই সংকটে।

সকালে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, অনেকেই তাদের পছন্দের কেনা পশু কোরবানি দিচ্ছেন। ভোর থেকেই তারা নেমে গেছেন এ কাজে। এছাড়া সকালে রাজধানীর গাবতলীর হাট থেকে গরু কিনতে দেখা গেছে অনেককে।

মূলত রাজধানীতে কসাই সংকটের কারণে প্রতি বছরই ঈদের দ্বিতীয় বা তৃতীয় দিন পর্যন্ত কোরবানি দিয়ে থাকেন সামর্থ্যবান মুসলমানরা। আবার কেউ কেউ পারিবারিক ঐহিত্য হিসেবে ঈদের দ্বিতীয় অথবা তৃতীয় দিন কোরবানি দিয়ে থাকেন। তবে এবার বর্জ্য অপসারণের সুবির্ধার্থে সবাইকে ঈদের দ্বিতীয় দিনের মধ্যে কোরবানি শেষ করতে অনুরোধ জানিয়েছিল ঢাকার দুই সিটির মেয়র। ফলে ঈদের দিন যারা কোরবানি দিতে পারেননি কিংবা দেননি, তারা আজই কোরবানি দিচ্ছেন।

আরও পড়ুন: বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় দুই সিটির চমক

বাংলামোটর এলাকার সোনারগাঁও রোডে সকাল থেকে এরই মধ্যে পাঁচ থেকে ছটি গরু কোরবানি করা হয়েছে। এখন চলছে মাংস প্রস্তুতের কাজ। এখনও ১০টির বেশি গরু বাঁধা অবস্থায় দেখা গেছে ওই এলাকায়। দিনের যে কোন সময় এসব পশু কোরবানি করা হবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

এদিকে, ঈদের দিন (বৃহস্পতিবার) কোরবানি হওয়া সব পশুর বর্জ্য দিনে দিনেই অপসারণ করা হয়েছে। ২১ হাজার পরিচ্ছন্নতাকর্মীর নিরলস শ্রমে মাত্র ৮ ঘণ্টায় ঢাকা উত্তর, আর ১১ ঘণ্টায় ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন সব বর্জ্য অপসারণ করেছে। পরে সার্বিক বিষয় নিয়ে রাতে পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ কাজে সহযোগিতার জন্য নগরবাসীকে ধন্যবাদও জানান দুই মেয়র।

এর আগে, ঈদুল আজহার দিন শেষে ওই রাতের মধ্যেই বর্জ্যমুক্ত করা হবে ঢাকা, ভোরের আলো ফোটার আগেই নগরবাসী পাবেন বর্জ্যমুক্ত শহর – এমনটাই কথা দিয়েছিলেন মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম ও শেখ ফজলে নুর তাপস। দিনশেষে তারা সেই কথা রেখেছেন; চমকে দিয়েছেন নগরবাসীকে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *