Skip to content

এবারের নারী বিশ্বকাপকে সেরা বলছেন ফিফা প্রেসিডেন্ট | খেলা

এবারের নারী বিশ্বকাপকে সেরা বলছেন ফিফা প্রেসিডেন্ট | খেলা

<![CDATA[

ফিফা নারী বিশ্বকাপের অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ড আসরটাই এখন পর্যন্ত সেরা। খেলার মান বাদ দিলেও কেবল আর্থিক দিক বিবেচনাতেই বিগত সব আসরকে ছাড়িয়ে গেছে এবারের বিশ্বকাপ। ফাইনাল ম্যাচের আগেই এবারের আসর থেকে ৫৭ কোটি ইউএস ডলার আয় করেছে ফিফা। জানিয়েছেন সংস্থাটির প্রেসিডেন্ট জিয়ান্নি ইনফান্তিনো।

অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের এবারের বিশ্বকাপ ছিলো অনেক প্রশ্নের উত্তর মেলানোর আসর। ফিফার আচমকা দল বাড়ানো, প্রাইজমানি কয়েক গুণ বৃদ্ধি নিয়ে শুরু থেকেই সমালোচনা ছিল এবারের আসরকে ঘিরে। কিন্তু কাউকে পাত্তা না দিয়ে নিজেদের পরিকল্পনায় অটুট থাকার ফল এখন হাতেনাতে পাচ্ছে ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা। অন্তত প্রেসিডেন্টের কথায় তারই প্রমাণ পাওয়া যায়।

 

নারী বিশ্বকাপের এবারের আসর এসে পড়েছে তার যবনিকাপাতের দিকে। বাকি আর মাত্র একটা ম্যাচ, তারপরই নতুন বিশ্বচ্যাম্পিয়ন পাবে ফুটবল দুনিয়া। স্পেন-ইংল্যান্ডের ফুটবলীয় কৌশলে বুঁদ হবে সিডনি অলিম্পিক স্টেডিয়াম। তার আগে আনুষ্ঠানিকভাবে সংবাদমাধ্যমের সামনে আসলেন ফিফা বস জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। বিশ্বকাপ ট্রফি পাশে নিয়ে জানালেন, এটাই নারী বিশ্বকাপের শ্রেষ্ঠ আসর।

 

শুক্রবার (১৮ আগস্ট) সংবাদ সম্মেলনে ইনফান্তিনো বলেন, ‘আমরা সবসময়ই বলতাম, সেরাটা আসতে এখনও দেরি আছে। কিন্তু এবারের আসর দেখে বলতে পারি, এটাই সেরা। সকল সমালোচনা দূরে সরিয়ে এবারের আসরটাই ইতিহাসের সবচেয়ে সুন্দর এবং গোছানো বিশ্বকাপ। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের টাইম জোন নিয়ে অনেক কথা হয়েছিল, কিন্তু দিন শেষে সব ঠিক আছে। ফুটবলের ওপরে আসলে কিছুই নেই।’

 

আরও পড়ুন: আর্জেন্টাইন ক্লাবে আনুষ্ঠানিক চুক্তি সারলেন জামাল

 

আর্থিক দিক বিবেচনায় এবারের বিশ্বকাপ ছাড়িয়ে গেছে নারীদের যে কোনো আসরকে। এর আগে, কাতার বিশ্বকাপ থেকে রেকর্ড ৭৫০ কোটি ডলার আয় করেছিল ফিফা। যা এখন পর্যন্ত ফিফার কোনো টুর্নামেন্ট থেকে সর্বোচ্চ আয়। নারীদের হয়তো সে তুলনায় অনেক কম, কিন্তু যা হয়েছে তাও রেকর্ড নারী বিশ্বকাপ ইতিহাসে। ফিফার হিসেব বলছে, ফাইনালের আগেই তাদের কোষাগারে ঢুকেছে ৫৭ কোটি ডলার।

 

ইনফান্তিনো বলেন, ‘আমরা আমাদের মেয়েদের প্রাইজমানি বাড়িয়েছিলাম। অনেকে অনেক কথা বলেছিল। সবার ধারণা ছিল, এটা একটা লস প্রজেক্ট হতে যাচ্ছে। কিন্তু দর্শকরা দেখিয়ে দিয়েছে ফুটবলকে তারা কতটা ভালোবাসে। এবারের আসর থেকে এখন পর্যন্ত ৫৭০ মিলিয়ন ডলার আয় করেছি। যা নারীদের ইতিহাসে সর্বোচ্চ।’

 

এবারের আসরের আগেই হঠাৎ করে দল বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ফিফা। সমালোচনা ছিল এ সিদ্ধান্ত নিয়েও। কিন্তু দিন শেষে পরিসংখ্যান বলছে, ফিফার জন্য এটা লাভজনক হয়েছে। ২৪ থেকে ৩২ করাতে, ফিফার আয় যেমন বেড়েছে, তেমনি বেড়েছে ব্রডকাস্টারদের দর্শক সংখ্যাও।

 

এ বিষয়ে ফিফা প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘সবাই বলেছিল, এই পরিকল্পনা ভেস্তে যাবে। আমরা ভুল করছি। কিন্তু এখন দেখুন, এটাই লাভজনক হয়েছে। খেলার মান বেড়েছে। প্রতিদ্বন্দ্বিতা বেড়েছে। নতুন ৮টি দল বিশ্বকাপে এসেছে, তাদের সমর্থকরা নানা মাধ্যমে খেলা দেখছে। এখন অনেক দেশ ভাবছে, তারাও খেলতে পারবে। নারীদের ফুটবলের জন্য আমরা বাৎসরিক ১ বিলিয়ন ডলার ব্যয় করেছি, এখন সেটার রেজাল্ট আসছে।’

 

আরও পড়ুন: প্রথমবারের মতো ফাইনালে ইংল্যান্ড

 

রোববার (২০ আগস্ট) বিশ্বকাপের ফাইনাল গ্যালারিতে থেকেই উপভোগ করবেন জিয়ান্নি ইনফান্তিনো।
 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *