Skip to content

ক্রেমলিনে বিদায়ের সময় শির সঙ্গে যে কথা হলো পুতিনের | আন্তর্জাতিক

ক্রেমলিনে বিদায়ের সময় শির সঙ্গে যে কথা হলো পুতিনের | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

বর্তমানে বৈশ্বিক ভূরাজনীতিতে বড় ধরনের পরিবর্তন আসছে, আর চীন ও রাশিয়া এই পরিবর্তেনের নেতৃত্ব  দিচ্ছে বলে মন্তব্য করেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। খবর আল জাজিরার।

বুধবার (২২ মার্চ) দুই দিনের সফর শেষে দেশে ফিরেছেন চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং। চীনের প্রেসিডেন্টকে বিদায় জানাতে ক্রেমলিনের মূল ফটকে আসেন রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। বিদায়ের সময় পুতিনকে শি বলেন, ‘পৃথিবীজুড়ে একটি পরিবর্তন আসছে-যে পরিবর্তন আমরা গত ১০০ বছরেও দেখিনি। এই পরিবর্তনটা আমরাই নেতৃত্ব দিয়ে চলছি একসঙ্গে।’
 

চীনা প্রেসিডেন্টের এবারের মস্কো সফরজুড়ে আলোচনায় ছিল ইউক্রেন যুদ্ধ। বৈঠকে ইউক্রেন সংকট সমাধানে ‘দায়িত্বপূর্ণ সংলাপের’ কথা বলেছেন দুই নেতা। এছাড়া নিজ নিজ দেশের পক্ষে পুতিন ও শি একটি চুক্তি সই করেছেন। এ চুক্তি সহযোগিতার ক্ষেত্রে দুই দেশের সম্পর্কে ‘নতুন যুগের’ সূচনা করতে যাচ্ছে বলে শি বলেছেন।

বুধবার শি জিনপিংয়ের বিদায়ের সময় পুতিনের সঙ্গে তার কথোপকথনের একটি ভিডিও অনলাইন মাধ্যমে প্রকাশিত হয়েছে। এতে পুতিনের উদ্দেশে শিকে বলতে শোনা যায়, ‘এ সময়টাতে কিছু পরিবর্তন এসেছে। এমন পরিবর্তন আমরা ১০০ বছরেও দেখিনি। আর আমরা দুজনই সেই ব্যক্তি, যারা এমন পরিবর্তনকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছি।’

আরও পড়ুন: চীন ও রাশিয়ার মধ্যে এক ডজনের বেশি চুক্তি স্বাক্ষর

শি জিনপিংয়ের এই কথায় প্রতিক্রিয়ায় রাশিয়ান প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে বলতে শোনা যায়, ‘আমি আপনার সঙ্গে একমত।’

এরপর বলেন, ‘প্রিয় বন্ধু, নিজের যত্ন নেবেন।’ এ সময় পুতিন দুই হাত দিয়ে শির হাত ধরে বলেন, ‘আপনার যাত্রা নিরাপদ হোক।’

গত সোমবার (২০ মার্চ) ঐতিহাসিক মস্কো সফর শুরু করেন চীনা প্রেসিডেন্ট জিনপিং। ইউক্রেনে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগে আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালত (আইসিসি) পুতিনের বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারির পর মস্কো সফর করেন শি। দুইদিনের এই সফরে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে একাধিক বৈঠক করেন তিনি। এর মধ্যে মঙ্গলবারের (২১ মার্চ) বৈঠকটি ছিল সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের মস্কো সফরকালে বাণিজ্য, শিল্প-বিজ্ঞান ও সামরিক খাতে এক ডজনের বেশি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে। এতে বন্ধুপ্রতীম দেশ দুইটির মধ্যকার বাণিজ্য ও বহুপাক্ষিক সম্পর্ক আরও এগিয়ে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

এদিকে, রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে চীনের মধ্যস্থতার প্রস্তাব নাকচ করে দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। দেশটি বলেছে, মস্কো ও কিয়েভের মধ্যে মধ্যস্থতার ক্ষেত্রে বেইজিংকে ‘নিরপেক্ষ মধ্যস্থতাকারী’ হিসেবে দেখছে না ওয়াশিংটন। বিশ্লেষকরা বলছেন, যুদ্ধ অবসানে চীনের মধ্যস্থকাকারী হওয়ার প্রস্তাবকে এই প্রথম সরাসরি নাকচ করে দিল প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন সরকার।

আরও পড়ুন: ইউক্রেন যুদ্ধ বন্ধে চীনের মধ্যস্থতার প্রস্তাব নাকচ যুক্তরাষ্ট্রের

গত বছরের ফেব্রুয়ারি মাসে ইউক্রেনে রুশ সামরিক অভিযানের মধ্যদিয়ে শুরু হয় এই যুদ্ধ। ভয়াবহ ও রক্তক্ষয়ী এই যুদ্ধ গত মাসে এক বছর পার করেছে। যুদ্ধের ইতি টানতে সেই শুরু থেকেই কূটনৈতিক দৌড়ঝাপ চলছে। তবে কোনো প্রচেষ্টাই এখন পর্যন্ত সফল হয়নি।

এ বিষয়ে সম্প্রতি মধ্যস্থতার প্রস্তাব দেয় চীন। শুধু তাই নয়, যুদ্ধ অবসানে ১২ দফা শান্তি প্রস্তাব দেয় প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের সরকার। এরপর চলতি সপ্তাহের মস্কো সফরেও রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে ওই শান্তি প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করেন চীনা প্রেসিডেন্ট।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *