Skip to content

খুলনায় শ্রমিকদের ৩২ লাখ টাকা সহায়তা শ্রম প্রতিমন্ত্রীর | বাংলাদেশ

খুলনায় শ্রমিকদের ৩২ লাখ টাকা সহায়তা শ্রম প্রতিমন্ত্রীর | বাংলাদেশ

<![CDATA[

শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অধীন বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশন তহবিল থেকে খুলনা জেলার সাতটি থানার প্রাতিষ্ঠানিক-অপ্রাতিষ্ঠানিক খাতের ১০৮ শ্রমিককে চিকিৎসা সহায়তা হিসেবে প্রায় ৩২ লাখ ৪০ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা প্রদান করেছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

সোমবার (২৭ মার্চ) বিকেলে খুলনা মহানগরীর দৌলতপুর শেখ মতিয়ার রহমান মিলনায়তনে এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে তিনি এসকল শ্রমিক ও তাদের সন্তান-পরিজনদের হাতে আর্থিক সহায়তার চেক তুলে দেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, কলকারখানা, ক্ষেত-খামারে উৎপাদন বৃদ্ধির জন্য শ্রমিকদের সুস্থতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সরকার শ্রমিকদের পাশে আছে। শেখ হাসিনার সরকারের সময় কোন শ্রমিক অসহায় থাকবে না। সকল শ্রমজীবী মানুষের জন্য শোভন কর্মপরিবেশ নিশ্চিত করেই আমরা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ২০৪১ সালের মধ্যে আমরা পরবর্তী প্রজন্মকে উন্নত-সমৃদ্ধ স্মার্ট বাংলাদেশ দেবো।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন,  আমি আজ ৫০ বছর শ্রমিকদের পাশে আছি। জীবনের বাকি দিনগুলো এদেশের শ্রমজীবী মেহনতি মানুষের জন্য কাজ করে যাবো। তেমনি বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ তহবিল নিয়ে শ্রম মন্ত্রণালয়ও শ্রমিকের পাশে আছে। শ্রম মন্ত্রণালয়ের অধীন শ্রমিক কল্যাণ তহবিল থেকে শ্রমিকদের আরো বেশি বেশি সহায়তা প্রদান করা হবে বলে তিনি শ্রমিকদের আশ্বাস দেন।

আরও পড়ুন: রমজান উপলক্ষে ৭ দেশে খাদ্য সহায়তা দিলেন সৌদি বাদশাহ

এ সময় খুলনা বিভাগীয় শ্রম দফতরের পরিচালক মো. মিজানুর রহমান, দৌলতপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি এবং বিজেএ এর চেয়ারম্যান শেখ সৈয়দ আলী, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর শেখ মোহাম্মদ আলী, মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. আশরাফুল ইসলাম, খালিশপুর থানা আওয়ামী লীগের সভাপতি সানাউল্লাহ নান্নু উপস্থিত ছিলেন।

১০৮ জন শ্রমিকের মধ্যে খুলনা সদরের ২০ জন, খালিশপুর থানার ৩৬ জন, দৌলতপুরের ২২জন, সোনাডাঙ্গা থানার ১২জন, রূপসা উপজেলার সাতজন, দিঘলিয়ার চারজন এবং খানজাহান আলী থানার সাতজনকে চেক প্রদান করা হয়েছে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *