Skip to content

গাজীপুরে পু্লিশ-বিএনপি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া | বাংলাদেশ

গাজীপুরে পু্লিশ-বিএনপি ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া | বাংলাদেশ

<![CDATA[

গাজীপুরে শোক র‌্যালিকে কেন্দ্র করে পুলিশ ও বিএনপি নেতাকর্মীদের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে শহরের বিএনপি কার্যালয়ের সামনে রাজবাড়ি সড়কে এ ঘটনা ঘটে। এ সময় লাঠিচার্জ, টিয়ালশেল ও শটগানের গুলি ছুড়ে রাস্তা ফাঁকা করে পুলিশ।

বিএনপি নেতাকর্মী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, সাম্প্রতিক সময় দেশের বিভিন্ন স্থানে বিএনপির ৫ নেতা-কর্মী নিহতের স্মরণে জেলা বিএনপি দলীয় কার্যালয়ে স্মরণসভা ও শোক র‌্যালির আয়োজন করে।

বিকেল ৪টার দিকে জেলা বিএনপির সভাপতি এ কে এম ফজলুল হক মিলনের সভাপতিত্বে সভা শুরু হয়। সাধারণ সম্পাদক রিয়াজুল হান্নানের সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য দেন কেন্দ্রীয় শ্রম সম্পাদক হুমায়ুন কবীর খান, সদস্য কাজী সাইয়েদুল আলম বাবুল, মো. হেলাল উদ্দিন, কাপাসিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি আজিজুর রহমান পেরা প্রমুখ।

আরও পড়ুন: বেশি বাড়াবাড়ি করলে খালেদা জিয়াকে কারাগারে পাঠানো হবে: তাপস

সভা শেষে নেতা-কর্মীরা শোক র‌্যালি বের করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। বাধা উপেক্ষা করে র‌্যালি বের করার চেষ্টা করে।
 

এ সময় পুলিশ ও বিএনপি নেতা-কর্মীদের সঙ্গে ধাক্কাধাক্কি শুরু হয়। লাঠিচার্জ করলে বিএনপি কর্মীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে ইট-পাটকেল ছোড়ে। পুলিশ বিএনপি নেতা-কর্মী ও দলীয় কার্যালয় লক্ষ্য করে টিয়াল সেল, শটগানের গুলি ও সাউন্ড গ্রেনেড ছোড়ে। এতে শহরের প্রধান সড়কে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। দোকান-পাট ও রাজবাড়ি সড়কে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এ ঘটনায়  চার পুলিশ আহত হয়েছে বলে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়।

আরও পড়ুন: সরকার জন-বিস্ফোরণ ঠেকাতে পারবে না: মির্জা ফখরুল

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শাহ রিয়াজুল হান্নান বলেন, শান্তিপূর্ণভাবে শোক শেষে র‌্যালি বের করতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয় এবং ব্যানার কেড়ে নিয়ে ছিঁড়ে ফেলে এবং বেদম লাঠিচার্জ শুরু করে। পরে পুলিশ দলীয় অফিস ও নেতাকর্মীদের লক্ষ্য করে টিয়ালশেল ও শটগানের গুলি ছুড়ে। এতে তাদের ২০-২৫ নেতাকর্মী আহত হয়। গুলিতে কালীগঞ্জ উপজেলা যুবদলকর্মী জাকির হোসেন গুলিবিদ্ধ হয়। তার দাবি পুলিশ অন্তত ১৫ জনকে আটক করে থানায় নিয়ে গেছে।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের (জিএমপি) অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার রেজওয়ান আহমেদ জানান, বিএনপি নেতাকর্মীরা সড়ক বন্ধ করে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির চেষ্টা করে। রাস্তা বন্ধ না করতে তাদের অনুরোধ করা হয়। এ সময় বিএনপি কর্মীরা পুলিশকে লাঠিপেটা ও ইট পাটকেল ছুড়ে। এতে পুলিশের চারজন আহত হয়। পরে রাবার বুলেট ও টিয়ারশেল ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনা হয়।

 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *