Skip to content

গিনিকে উড়িয়ে বিশ্বকাপের পর প্রথম জয় ব্রাজিলের | খেলা

গিনিকে উড়িয়ে বিশ্বকাপের পর প্রথম জয় ব্রাজিলের | খেলা

<![CDATA[

গত ডিসেম্বরে বিশ্বকাপ থেকে বিদায়ের পর এখন পর্যন্ত স্থায়ী কোচ খুঁজে পায়নি পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। হতাশার সেই আসর শেষে প্রথম প্রীতিম্যাচে হেরেছিল মরক্কোর বিপক্ষে। তবে এবার আফ্রিকার আরেক দেশ গিনির বিপক্ষে বড় জয় পেয়েছে সেলেসাওরা। বিশ্বকাপ বাছাই পর্বের আগে এ যেন পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নদের নতুন শুরু।

স্পেনের বার্সেলোনার করনেলা এল প্রাতে গিনির বিপক্ষে ৪-১ গোলের বড় জয় পেয়েছে ব্রাজিল। প্রথমার্ধে ২ গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর দ্বিতীয়ার্ধে আরও ২ গোল করে সেলেসাওরা। ব্রাজিলের হয়ে জোয়েলিনটন, রদ্রিগো, এদার মিলিতাও ও ভিনিসিউস জুনিয়র গোলগুলো করেন। গিনির পক্ষে একটি গোল শোধ করেন সেরহৌ গুইরাসি।

বর্ণবাদ বিরোধী প্রচারণার অংশ হিসেবে এদিন ব্রাজিল প্রথমার্ধে কালো জার্সি পরে নামে। ইতিহাসে এই প্রথম কালো জার্সি পরে খেলতে নামা ব্রাজিলকে প্রথমার্ধের শুরুতে ঠিক চেনাই যাচ্ছিল না। বরং র‍্যাঙ্কিংয়ে অনেক পিছিয়ে থাকা গিনিই খেলছিল গতিশীল ফুটবল। গিনির আক্রমণের ফাঁকেই ব্রাজিল মাঝেমাঝে আক্রমণে উঠছিল। তেমনই একটি আক্রমণ থেকে ২৬ মিনিটে ফ্রিকিক পায় পাঁচবারের বিশ্বচ্যাম্পিয়নরা।

 

বর্ণোবাদ বিরোধী লড়াইয়ে ম্যাচ শুরুর আগে নীরবতা পালন করে দুই দল। ছবি: গেটি ইমেজ

আরও পড়ুন:জার্সি বদলে নেমেই দ্বিতীয়ার্ধে আরও এক গোল ব্রাজিলের

ডানপ্রান্তে পাওয়া ফ্রিকিক থেকে জটলায় বল পেয়ে গোল করেন ব্রাজিলের জার্সিতে প্রথম ম্যাচ খেলতে নামা জোয়েলিনটন। জাতীয় দলে অভিষেকেই গোল করলেন নিউক্যাসল ইউনাইটেডে খেলা এই মিডফিল্ডার। এর চার মিনিট পরই ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রদ্রিগো।

ডানপ্রান্ত দিয়ে আক্রমণে ওঠে ব্রাজিল। এই আক্রমণেই বল পেয়ে ডিবক্সে ঢুকে পড়েন রিয়াল মাদ্রিদের ফরোয়ার্ড রদ্রিগো গোয়েস। কোনাকুনি শটে গোলরক্ষককে পরাস্ত করেন তিনি। এর ছয় মিনিট পর গোল খায় ব্রাজিল। দারুণ এক আক্রমণ থেকে গোল করেন সেরহৌ গুইরাসি।

২-১ গোলে এগিয়ে থেকে বিরতিতে যায় ব্রাজিল।

দ্বিতীয়ার্ধে জার্সি বদলে চিরাচরিত হলুদ জার্সি গায়ে খেলতে নামে ব্রাজিল। চেনা জার্সি গায়ে চাপাতেই নিজেদের খুঁজে পায় সেলেসাওরা। এই অর্ধে আক্রমণাত্মক ফুটবল খেলতে থাকেন ভিনিসিউস-রদ্রিগোরা। যার প্রেক্ষিতে দ্রুতই গোলও পেয়ে যায়। ৪৭ মিনিটে গোল করেন রিয়ালের  সেন্টার ব্যাক এদার মিলিতাও।

আরও পড়ুন:অভিষেকেই জোয়েলিনটনের গোল, এগিয়ে যাওয়ার পর গোল হজম

এদিন ব্রাজিলের আক্রমণভাগের প্রাণভ্রমরা হিসেবে ১০ নম্বর জার্সি গায়ে চাপিয়েছিলেন ভিনিসিউস। নেইমারের ইনজুরির কারণে ১০ নম্বর জার্সি পেয়েছেন তিনি, আর পেলে-নেইমারদের স্মৃতিবিজড়িত জার্সি গায়ে তিনি খেলেছেনও দারুণ। বাঁপ্রান্তে রীতিমতো নাচিয়ে ছেড়েছেন গিনির খেলোয়াড়দের। ড্রিবলিং আর গতি দিয়ে বারবার ঢুকে পড়ছিলেন ডিবক্সে। শুধু গোলটাই পাচ্ছিলেন না তিনি।

তবে ৮৮ মিনিটে ভাগ্য তার দিকে মুখ তুলে চায়। গিনি নিজেদের ডিবক্সে ব্রুনো গুইমেরেসকে ফেলে দিলে পেনাল্টির বাঁশি বাজায় রেফারি। স্পটকিকে গোল করেন ভিনিসিউস।

শেষ পর্যন্ত আর গোল না হলেও বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে ব্রাজিল। 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *