Skip to content

চীনে বাড়বে চাহিদা, ঊর্ধ্বমুখী অপরিশোধিত তেল | বাণিজ্য

চীনে বাড়বে চাহিদা, ঊর্ধ্বমুখী অপরিশোধিত তেল | বাণিজ্য

<![CDATA[

একদিকে চীনের বাজারে অপরিশোধিত তেলের চাহিদা বাড়ার সম্ভাবনা দেখা দিয়েছে। অন্যদিকে তেল উৎপাদনকারী দেশগুলোর সংস্থা ওপেক প্লাস তেল উৎপাদন হার অপরিবর্তিত রাখবে বলে ধারণা করা হচ্ছে। ফলে আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম আবারও বাড়ছে।

ব্লুমাবার্গের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ‘জিরো কোভিড নীতি’ থেকে সরে এসেছে চীন। এতে অপরিশোধিত তেলের শীর্ষ আমদানিকারক দেশটিতে জ্বালানিটির চাহিদা বাড়তে পারে। এদিকে ওপেকের প্রতিনিধিরা জানান, মন্ত্রীদের নিয়ে গঠিত একটি উপদেষ্টা কমিটি আগামী সপ্তাহে বৈঠকে বসবে বলে আশা করা হচ্ছে। সে সময়ে তেলের উৎপাদন হার বর্তমান স্তরে রাখার সুপারিশ করা হবে।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স জানিয়েছে, মঙ্গলবার (২৪ জানুয়ারি) ব্রেন্ট ক্রুডের দাম ২ দশমিক ৩ শতাংশ পড়ে যায়। কিন্তু বুধবারেই (২৫ জানুয়ারি) দাম ২২ সেন্ট বা শূন্য দশমিক ৩ শতাংশ বেড়ে ব্যারেলপ্রতি হয় ৮৬ দশমিক ৩৫ ডলার।

এদিকে আগের দিন ওয়েস্ট টেক্সাস ইন্টারমিডিয়েটের (ডব্লিউটিআই) প্রতি ব্যারেলের দাম ১ দশমিক ৮ শতাংশ কমে যায়। কিন্তু বুধবার অপরিশোধিত তেলটির দাম ১৩ সেন্ট বা শূন্য দশমিক ২ শতাংশ বেড়ে প্রতি ব্যারেল দাঁড়ায় ৮০ দশমিক ২৬ ডলারে।

আরও পড়ুন: রাশিয়ার গ্যাসের বিকল্প নেই জার্মানির!

বৈশ্বিক মন্দার আশঙ্কায় বছরের প্রথম দুই সেশনে অপরিশোধিত তেলের দর প্রায় ১০ শতাংশ পড়ে গেছে। তবে চীনের বাজারে চাহিদা বাড়ার প্রত্যাশা বাড়ায় তেলের দাম বেড়ে গেছে বলে মনে করেছেন বিশেষজ্ঞরা। এদিকে ডলারের দুর্বল অবস্থানও তেলের দামে প্রভাব ফেলেছে।

নিসানের সিকিউরিটিজের গবেষণা মহাব্যবস্থাপক হিরোইউকি কিকুকাওয়া বলেছেন, ‘বছরেরর দ্বিতীয়ার্ধে চীনের জ্বালানি চাহিদা পুনরুদ্ধারের হওয়ার সম্ভাবনা বাড়ছে।’

এদিকে চীনের অর্থনীতি পুনরায় খুলে গেলে আগামী ১৮ সালে তেলের চাহিদা ব্যাপক আকারে বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন ব্যাংক অব আমেরিকার সিকিউরিটিজের বিশ্লেষকরা। 
 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *