Skip to content

চীন-রাশিয়া বিশ্ব ব্যবস্থার জন্য চ্যালেঞ্জ: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী | আন্তর্জাতিক

চীন-রাশিয়া বিশ্ব ব্যবস্থার জন্য চ্যালেঞ্জ: ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ঋষি সুনাক বলেছেন, চীন ও রাশিয়া বর্তমান বিশ্ব ব্যবস্থার জন্য ‘পদ্ধতিগত চ্যালেঞ্জ’। তবে ‘ব্রিটেন আবারও ঘুরে দাঁড়িয়েছে’ এবং যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে প্রস্তুত। রোববার (১২ মার্চ) এনবিসি নিউজকে এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন তিনি।

ত্রিপক্ষীয় সাবমেরিন চুক্তি (অকাস) চূড়ান্ত করতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী এখন যুক্তরাষ্ট্র সফরে রয়েছেন। সোমবার (১৩ মার্চ) মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও অস্ট্রেলিয়ার প্রধানমন্ত্রী অ্যান্টনি আলবানিজের সঙ্গে আলোচনা শুরু করেছেন তিনি।

তার আগে ইউএসএস মিডওয়ে মিউজিয়ামে এনবিসি নিউজের লেসটার হোল্টকে সাক্ষাৎকার দেন সুনাক। এতে তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক সময়ে আমরা চীনের যে আচরণ দেখেছি তা সত্যিই উদ্বেগজনক। চীন নিজ দেশে অতি কর্তৃত্ববাদী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে আর অন্যান্য দেশের বেলাও আরও একগুয়ে ভাব দেখাচ্ছে।’

আরও পড়ুন: যুক্তরাজ্যের নতুন ‘ডিউক অব এডিনবরা’ প্রিন্স এডওয়ার্ড

তিনি আরও বলেন, ‘চীন নিশ্চিতভাবেই আমাদের অর্থনৈতিক স্বার্থের জন্য সবচেয়ে বড় হুমকি তৈরি করেছে। শুধু তাই নয়, বিশ্ব ব্যবস্থার জন্যও একটি পদ্ধতিগত চ্যালেঞ্জ হিসেবে হাজির হয়েছে।’

এখানেই শেষ নয়, ব্রিটেন তার নতুন পররাষ্ট্রনীতিতেও চীনকে ‘নতুন যুগের চ্যালেঞ্জ’ হিসেবে অভিহিত করেছে। সোমবার (১৩ মার্চ) প্রকাশিত ওই নীতিতে ইউক্রেন যুদ্ধের পর রাশিয়ার সাথে চীনের ক্রমবর্ধমান অংশীদারিত্ব এবং তেহরানের সাথে মস্কোর ক্রমবর্ধমান সহযোগিতার বিষয়ে সতর্ক করা হয়েছে।

প্রতিরক্ষা ব্যয় আরও ৬ বিলিয়ন ডলার বাড়ানোর ঘোষণা

রাশিয়া ও চীনের ‘হুমকির বিরুদ্ধে’ প্রতিরক্ষা ব্যয় আরও ৬ বিলিয়ন ডলার বাড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে ব্রিটেন। রোববার (১২ মার্চ) এক বিবৃতিতে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী সুনাক বলেন, ব্রিটেনের উচ্চ প্রতিরক্ষা ব্যয়ের প্রয়োজনের পেছনে মূল কারণ চীন-রাশিয়ার হুমকি।

তার মতে, প্রতিরক্ষা ব্যয় ৬ বিলিয়ন ডলার করার বিষয়টি মূলত বৈদেশিক, প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা ব্যয়ের নতুন পরিকল্পনা, যা রাশিয়া-চীনের হুমকি মোকাবেলায় বিবেচনা করা হয়েছে।

আরও পড়ুন: যুক্তরাজ্যের নতুন শরণার্থী পরিকল্পনা ‘খুবই উদ্বেগজনক’: জাতিসংঘ

সুনাক বলেন, ‘আমরা গত বছর স্পষ্টভাবে দেখেছি, কীভাবে বৈশ্বিক সংকট মারাত্মক প্রভাব ফেলছে। ইউক্রেনে রাশিয়ান হামলায় জ্বালানি ও খাদ্যের দাম বেড়েছে। যুক্তরাজ্য জাতীয় প্রতিরক্ষাকে শক্তিশালী করতে অর্থনৈতিক নিরাপত্তা থেকে শুরু করে প্রযুক্তি সরবরাহ চেইন এবং গোয়েন্দা দক্ষতা বৃদ্ধি করতে চায়। যাতে আমরা শত্রুর শক্তি ব্যবহারের বিরুদ্ধে দুর্বল না হই।’

বিবৃতি অনুসারে, ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী দীর্ঘমেয়াদে মোট দেশজ উৎপাদনের ২.৫ শতাংশ প্রতিরক্ষা ব্যয় বাড়াতে চান। সেই লক্ষ্যে ২০২৫ সালে প্রতিরক্ষা ব্যয় পর্যালোচনা করা হবে। ২০২১-২২ সেশনে দেশটি জিডিপির ২.২ শতাংশ সামরিক খাতে ব্যয় করেছে। বিশ্বব্যাংকের মতে, যার পরিমাণ ৫৫ বিলিয়ন ডলার।

যুক্তরাষ্ট্র থেকে পাঁচটি সাবমেরিন কিনছে অস্ট্রেলিয়া 

সোমবার (১৩ মার্চ) সান দিয়াগোতে সুনাক, বাইডেন ও আলবানিজ যৌথ সংবাদ সম্মেলনে হাজির হবেন। সেখানে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে পারমাণবিক সাবমেরিন চুক্তির বিষয়ে বিস্তারিত বিবরণ প্রকাশ করবেন। ২০২১ সালে অকাস জোট গঠিত হয়েছিল। এটি মূলত একটি প্রতিরক্ষা জোট।

আরও পড়ুন: যাবজ্জীবন সাজাপ্রাপ্ত অপরাধীদের বিয়ে বন্ধে আইন!

চুক্তি অনুযায়ী, অস্ট্রেলিয়া মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে কমপক্ষে পাঁচটি পারমাণবিক শক্তি চালিত ভার্জিনিয়া শ্রেণির সাবমেরিন কিনবে। তারপর ব্রিটিশ অ্যাসটিউট শ্রেণির সাবমেরিনের একটি পরিবর্তিত সংস্করণ তৈরি করবে। এই চুক্তিটিকে প্রশান্ত মহাসাগরে চীনের সামরিক উচ্চাকাঙ্ক্ষাকে মোকাবেলা করার একটি পথ হিসেবে দেখা হচ্ছে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *