Skip to content

জনসংখ্যায় আগেই চীনকে ছাড়িয়ে গেছে ভারত | আন্তর্জাতিক

জনসংখ্যায় আগেই চীনকে ছাড়িয়ে গেছে ভারত | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

চীনে গত বছর জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার ছিল বিগত ৬০ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ন। গত কয়েকদিন ধরে এ নিয়ে চলছে ব্যাপক আলোচনা। বিশেষজ্ঞরা বলছিলেন, জনসংখ্যার দিক থেকে দ্রুতই চীনকে পেছনে ফেলবে ভারত। তবে মার্কিন সংবাদমাধ্যম ব্লুমবার্গ এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, ইতোমধ্যেই জনসংখ্যায় শীর্ষস্থান দখল করেছে ভারত।

ব্লুমবার্গের তথ্যানুসারে, ২০২২ সালের শেষে ভারতের জনসংখ্যা পৌঁছেছে ১৪১ কোটি ৭০ লাখে। সেখানে চীনের জনসংখ্যা ১৪১ কোটি ৫০ লাখ। অর্থাৎ গত বছরই ভারতের জনসংখ্যা ২০ লাখ বেশি হয়েছে। আগামীতে এ ব্যবধান আরও বাড়বে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

এদিকে ম্যাকরোট্রেন্ডস নামের একটি সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, ২০২২ সালে ভারতের জনসংখ্যা ১৪১ কোটি ৮০ লাখ হয়েছে, যা চীনের থেকে ৩০ লাখ বেশি।  

চীনের ন্যাশনাল ব্যুরো স্ট্যাটিস্টিকসের তথ্য বলছে, চীনে গত বছর জনসংখ্যা কমেছে ৮ লাখ ৫০ হাজার। সেখানে একই সময়ে জন্ম হয়েছে ৯৫ লাখ শিশুর, ১৯৫০ সালের পর যা সবচেয়ে কম। এছাড়া ২০২২ সালে করোনার পাশাপাশি অন্যান্য কারণে মৃত্যু হয়েছে ১ কোটি ৪ লাখ মানুষের।  

২০২১ সালে চীনে জন্মহার কমে হয়েছে ১৩ শতাংশ। উল্লেখ্য, ২০২২ সালের ৮ ডিসেম্বর থেকে ২০২৩ সালের ১২ জানুয়ারি পর্যন্ত দেশটিতে কোভিডে আক্রান্ত হয়ে ৬০ হাজার মানুষ মারা গেছেন। অর্থাৎ, একদিকে কোভিডে বহু মানুষের মৃত্যু, অন্যদিকে জন্মহার কমায় চীনের জনসংখ্যা কমেছে।  

আরও পড়ুন: ৬০ বছরে প্রথমবার জনসংখ্যা কমেছে চীনে

এদিকে মহামারিতে ভারতে বহু মানুষের মৃত্যু হলেও জন্মহারের কারণে জনসংখ্যা বেড়েছে। জাতিসংঘের তথ্যানুসারে, ২০২২ থেকে ২০৫০ সালের মধ্যে পৃথিবীর জনসংখ্যা বৃদ্ধির অর্ধেকের কারণ হবে এশিয়া ও আফ্রিকার ৮টি দেশ। সেগুলো হল কঙ্গো, মিশর, ইথিওপিয়া, নাইজেরিয়া, তানজানিয়া, ফিলিপাইন ও ভারত। 

চীনের বিরাট জনসংখ্যা দেশটির অর্থনীতির অন্যতম চালিকাশক্তি। এমনকি বিশ্ব অর্থনীতিতে তার ব্যাপক প্রভাব রয়েছে। এ অবস্থায় ছয় দশকে প্রথমবারের মতো চীনের জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার কমে যাওয়ার বিষয়টি ভাবাচ্ছে অনেককে। অন্যদিকে ২০৫০ সাল পর্যন্ত ভারতে জনসংখ্যার বৃদ্ধি অব্যাহত থাকলে অর্থনীতিতে তার কী প্রভাব পড়তে পারে, সেটিও নজরে রাখছেন বিশ্লেষকরা।  

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *