Skip to content

ডিঙি নৌকায় নিয়ে তুলে দেয়া হয় ট্রলারে | বাংলাদেশ

ডিঙি নৌকায় নিয়ে তুলে দেয়া হয় ট্রলারে | বাংলাদেশ

<![CDATA[

ট্রলারযোগে সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় মানবপাচারকারী চক্র আবারও সক্রিয় হয়ে উঠেছে। কক্সবাজার সমুদ্র উপকূলকে ট্রানজিট হিসেবে ব্যবহার করছে তারা।

রোহিঙ্গাদের দাবি, স্থানীয় ও রোহিঙ্গা দালালচক্র নানা প্রলোভন দেখিয়ে পাচারের উদ্দেশ্যে তাদের জিম্মি করছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের পাশের সমুদ্র উপকূল ঘিরেই সক্রিয় চক্রটি। কেননা, এই উপকূলে থাকা ডিঙি নৌকা নৌকার পয়েন্টগুলোই মানবপাচারের ট্রানজিট ঘাট হিসেবে ব্যবহার করছে অপরাধীচক্র।

পুলিশ সূত্রে জানা যায়, সাগরপথে মালয়েশিয়ায় যাওয়ার জন্য ক্যাম্পে প্রচারণা চালাচ্ছে কয়েকটি দালালচক্র। তারপর সাধারণ রোহিঙ্গাদের জিম্মি করে রাতের আঁধারে আনা হচ্ছে উপকূলবর্তী ঘাটে। এরপর স্থানীয় দালালদের সহযোগিতায় উপকূলের ডিঙি নৌকার মাধ্যমে তুলে দেয়া হচ্ছে সাগরে থাকা বড় ট্রলারে।

আরও পড়ুন: ‘ফেসবুক-টিকটকের কারণে মানবপাচার বেড়েছে’

মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) পাচারকালে উদ্ধার হওয়ার রোহিঙ্গাদের দাবি, নানা প্রলোভন দেখিয়ে জিম্মি করে তাদের মালয়েশিয়ায় পাচার করছিল দালালচক্রটি।

স্থানীয় ও রোহিঙ্গা দালালচক্র মেরিন ড্রাইভের সমুদ্র উপকূলকে মানবপাচারের রুট হিসেবে ব্যবহার করছে বলে দাবি করেছেন টেকনাফের বাহারছড়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আমজাদ হোসেন খোকন।

আরও পড়ুন: মানবপাচার রোধে আইনমন্ত্রীর পরামর্শ

তবে পুলিশ সুপার মো. মাহফুজুল ইসলাম জানালেন, অনুসন্ধান ও তদন্তের মাধ্যমে দালালদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনা হবে।

চলতি বছর সাগরপথে অবৈধভাবে মালয়েশিয়ায় মানব পাচারের চেষ্টাকালে প্রায় ৩০০ রোহিঙ্গাকে উদ্ধার করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *