Skip to content

ডেঙ্গু পরিস্থিতি ভয়াবহ, শঙ্কিত চিকিৎসকরা | স্বাস্থ্য

ডেঙ্গু পরিস্থিতি ভয়াবহ, শঙ্কিত চিকিৎসকরা | স্বাস্থ্য

<![CDATA[

ভয়াবহ হচ্ছে ডেঙ্গু। অক্টোবরে এসেও ঊর্ধ্বমুখী প্রকোপ। ঢাকার পাশাপাশি বাইরেও বাড়ছে রোগীর সংখ্যা। চিকিৎসকরা বলছেন, হঠাৎ করেই প্লাটিলেট কমে যাওয়ায় বাড়ছে আতঙ্ক। বেড়েছে রোগীর রক্ত দেয়ার হার। স্বাস্থ্য অধিদফতর বলছে, যেকোনো জ্বরেই নিতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শ।

বদলেছে ডেঙ্গু নিয়ে আগের ধারণা। এখন আর শহুরে রোগ নয় ডেঙ্গু।

নয় বছরের খাদিজা। বাড়ি বরগুনার পাথরঘাটায়। সেখানে থেকেই এডিসের কামড়ে কাবু। পরে অবস্থার অবনতি হলে বরিশাল হয়ে ঢাকায়। এখন রেডক্রিসেন্ট হোলি ফ্যামিলি হাসপাতালের বিছানায় লড়ছে এই শিশু। সবশেষ রিপোর্টে প্লাটিলেট ১৫ হাজার, তাই উদ্বিগ্ন তার বাবা।

সাধারণত মাঝ-সেপ্টেম্বর থেকে কমতে থাকে ডেঙ্গুর প্রকোপ। তবে এবার অক্টোবরে এসেও জেঁকে বসেছে। পহেলা অক্টোবর ছিল মৌসুমের সর্বোচ্চ রোগী। গত পাঁচ দিনের তিন দিনেই রোগী ছিল পাঁচশর বেশি। এই দফায় শরীরে র‌্যাশ কিছুটা কম থাকলেও তীব্র মাথাব্যথা আর শরীর ব্যথা দেখা দিচ্ছে আক্রান্ত রোগীর।

আরও পড়ুন: ঠাকুরগাঁওয়ে বিনামূল্যে চক্ষুসেবা

চিকিৎসকরা বলছেন, রোগীর ক্ষেত্রে চতুর্থ দিনেই কমছে রোগীর প্লাটিলেট। আবার হঠাৎ করেই নেমে আসছে ৩০ হাজারের নিচে। সে ক্ষেত্রে জ্বর হলেই নিতে হবে চিকিৎসকের পরামর্শ।

হোলি ফ্যামিলি হাসপাতালের মেডিসিন বিভাগের প্রধান অধ্যাপক ডা. আবু হেনা মোস্তফা কামাল বলেন, ইদানীং ডায়রিয়া বা বমি হওয়াটা অনেক কমে এসেছে। এ ছাড়া র‌্যাশ হওয়াটাও কমেছে। কিন্তু অল্প সময়ের মধ্যেই অর্থাৎ প্রথম ৪ থেকে ৫ দিনের মধ্যেই প্লাটিলেট কমে যাচ্ছে।

হোলি ফ্যামিলি হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. দীপি বড়ুয়া বলেন, জ্বল হলে একেবারে অবহেলা করা যাবে না। চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

আরও পড়ুন: বিএসএমএমইউয়ে প্রথমবারের মতো বুক কাটা ছাড়াই ভালভ প্রতিস্থাপন

তবে প্লাটিলেট কমলেও গাইডলাইন মেনে চিকিৎসা দিলে ভয়ের কিছু নেই বলছে স্বাস্থ্য অধিদফতর।

চলতি বছর ডেঙ্গু নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রোগীর সংখ্যা প্রায় সতেরো হাজার। আর মৃতের সংখ্যা ৫৬।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *