Skip to content

বিপিএলে ডিআরএস না থাকায় অবাক বিদেশি ক্রিকেটাররা | খেলা

বিপিএলে ডিআরএস না থাকায় অবাক বিদেশি ক্রিকেটাররা | খেলা

<![CDATA[

২০২৩ সালে এসেও কোনো দেশের টি-টোয়েন্টি ফ্র্যাঞ্জাইজি লিগে ডিআরএস প্রযুক্তি না থাকাটা অবাক করছে বিদেশি ক্রিকেটারদের। হক আই কিংবা আল্ট্রা এজবিহীন এডিআরএসের ব্যবহার, কেবল অবাকই করছে না তাদের বরং এ প্রযুক্তির মাধ্যমে নেয়া সিদ্ধান্ত কতটুকু নির্ভুল, তা নিয়েও প্রশ্ন তুলছেন কেউ কেউ। যত দ্রুত সম্ভব বিপিএলে ডিআরএসের অন্তর্ভুক্তির প্রত্যাশা তাদের।

২০০৮ সালে ক্রিকেটে ব্যবহার শুরু হয় ডিশিসন রিভিউ সিস্টেম- ডিআরএসের। এরপরই সময়ের পরিক্রমায়, ফিল্ড আম্পায়ারদের ভুল সংশোধনে ক্রমেই জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই প্রযুক্তি।

ক্রিকেট এখন এতটাই ডিআরএস নির্ভর হয়ে পড়েছে যে, আন্তর্জাতিক ক্রিকেট তো বটেই, ফ্র্যাঞ্জাইজি ক্রিকেটও এখন চিন্তা করা কঠিন এই প্রযুক্তি ছাড়া। সেখানে মৌসুমের পর মৌসুম নানান অজুহাতে, ডিআরএস ছাড়াই চলছে বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেট।

ডিআরএসের পরিবর্তে ‘এডিআরএস’ নামক অদ্ভূত এক প্রযুক্তির ব্যবহার বিপিএলে। যেখানে নেই হক আই বা আল্ট্রা এজের ব্যবহার, স্লো মোশনে টিভি রিপ্লে দেখে নেয়া হয় চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। বিপিএলের মতো টুর্নামেন্টে এমন কিছুর ব্যবহার দেখে হতবাক বিদেশি ক্রিকেটাররা।

খুলনা টাইগার্সের হয়ে খেলতে আসা ডাচ ক্রিকেটার পল ফন মেকেরিন বলেন, ‘আপনাকে সামনে এগোতে হবে। ম্যাচের ভুলগুলো কমাতেই আপনি ডিআরএস সিস্টেম আনবেন। আমার মনে হয় এখন যেভাবে সিদ্ধান্ত নেয়া হচ্ছে, তাতে আরও সংশয় তৈরি হবে।’

আরও পড়ুন: বিপিএলের প্রতি কৃতজ্ঞ ডেভিড মালান

টি-টোয়েন্টি ক্রিকেটের অন্যতম তারকা ডেভিড মালানও হতাশ ডিআরএসের ব্যবহার না দেখে। টুর্নামেন্টকে আরও স্বচ্ছ করতে, যত দ্রুত সম্ভব এই প্রযুক্তির সংযোজনের অনুরোধ ইংলিশ ব্যাটারের।

কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্সের এ ক্রিকেটার বলেন, ‘মানুষ মাত্রই ভুল করে। আমরা ক্রিকেটাররা বাজে শট খেলি, বোলাররা বাজে বল করে, আম্পায়াররাও কঠিন সময় পার করেন। আমাদের এটা মেনে নিতে হবে। ডিআরএস এজন্যই ব্যবহার করা হয়। এ ধরনের দুর্দান্ত টুর্নামেন্টে ডিআরএস না থাকাটা হতাশার। আশা করছি খুব দ্রুতই এই প্রযুক্তির সংযোজন করা হবে।’

আরও পড়ুন: প্রতি ম্যাচেই বদলাবে বরিশালের অধিনায়ক

ডিআরএস না থাকাতে সমালোচনা তো হচ্ছে, তবে এডিআরএসের ব্যবহার প্রতিদিন বিতর্ক তৈরি করছে ক্রিকেট মাঠে। সে বিতর্ক দূরে রেখে বিপিএল কতদূর আগাতে পারে, সেটাই এখন সবার প্রশ্ন।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *