Skip to content

যেভাবে গরম হওয়া থেকে মুক্তি মিলবে স্মার্টফোনের | বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

যেভাবে গরম হওয়া থেকে মুক্তি মিলবে স্মার্টফোনের | বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি

<![CDATA[

বর্তমানে প্রায় সব বয়সি মানুষই স্মার্টফোন ব্যবহার করেন। ছোট বাচ্চাদের হতেও এখন দেখা যায় স্মার্টফোন। স্মার্টফোন আমাদের জীবনকে অনেক সহজ করে দিয়েছে। তবে স্মার্টফোন ব্যবহার করতে গিয়ে প্রত্যেকে যে সমস্যায় সবচেয়ে বেশি ভোগেন তা হলো ফোন গরম হয়ে যাওয়া। অল্প সময় ব্যবহার করলেও অনেক সময় ফোন গরম হয়ে যায়।

তবে কিছু বিষয় মাথায় রাখলে এ সমস্যা থেকে খুব সহজেই মুক্তি মিলবে। চলুন জেনে নেয়া যাক কোন কোন বিষয়গুলো মেনে চললে সখের স্মার্টফোনটি আর খুব বেশি গরম হবে না।

 

আরও পড়ুন: স্মার্টফোনের ব্রাইটনেস কতটুকু রাখা জরুরি?

পার্ক করা গাড়ির ভেতরে কখনো সখের স্মার্টফোনটি রাখবেন না। রোদে গাড়ি পার্ক করা থাকলে গাড়ির ভেতরটা অনেক গরম হয়ে থাকে। তাই পার্ক করা গাড়িরর ভেতরে কখনো ফোন রাখবেন না। আর আইফোন ৩৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি তাপমাত্রায় রাখলে এর ব্যাটারির মারাত্মক ক্ষতি হতে পারে।

গাড়ি চালানোর সময় গাড়ির ড্যাশবোর্ডে কখনো ফোন রাখবেন না। কারণ গাড়ি চলন্ত অবস্থায় ড্যাশবোর্ডে ফোন রাখলে তাতে ফোন খুব সহজেই গরম হয়ে যায়। কারণ গ্লাসে সূর্যের আলো খুব বেশি পড়ে। আর অতিরিক্ত সূর্যালোকের কারণে স্মার্টফোন খুব দ্রুত গরম হয়ে যায়।

স্মার্টফোনে ব্যাক-কভার ব্যবহার করা খুব ভালো অভ্যাস। কারণ এতে কোনো কারণে ফোন হাত থেকে পড়ে গেলেও ফোনের কোনো ক্ষতি হয় না। কিন্তু এ ব্যাক-কভার অনেক সময় ফোন গরম হয়ে যাওয়ার কারণ হতে পারে। আর যখনই দেখবেন আপনার ফোনটি গরম হয়ে যাচ্ছে, সঙ্গে সঙ্গে ব্যাক-কভারটি খুলে ফেলুন। যদি সম্ভব হয় তাহলে গরমের সময় ব্যাক-কভার ছাড়াই স্মার্টফোন ব্যবহার করুন।

অনেকেরই মোবাইল ফোনে গেম খেলার অভ্যাস রয়েছে। বিশেষ করে তরুণ প্রজন্মরা এ কাজটি বেশি করে থাকেন। ফোনে অতিরিক্ত গেম খেলা থেকে বিরত থাকুন। ফোনের উপর বেশি লোড/চাপ পড়ে এ ধরনের গেম খেলা থেকে বিরত থাকুন। ভারী গেমগুলো স্মার্টফোনের ব্যাটারি খুব দ্রুত নষ্ট করে দেয়। আবার অতিরিক্ত গেম খেলার কারণে স্মার্টফোন গরম হয়ে যায়।

 

আরও পড়ুন: মুহূর্তেই স্মার্টফোনে হবে অবিশ্বাস্য চার্জ!

অনেকেরই ফোন চার্জে বসিয়ে ব্যবহার করার অভ্যাস রয়েছে। এ ধরনের অভ্যাস থেকে বিরত থাকুন। কারণ চার্জে বসিয়ে ফোন ব্যবহার করলে ফোনের তো ক্ষতি হবেই, একই সঙ্গে আপনার স্বাস্থ্যের জন্যও এটি মারাত্মক ক্ষতিকর।

 

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *