Skip to content

রান্নাঘরে স্ত্রীর গলাকাটা ও শয়নকক্ষে স্বামীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার | বাংলাদেশ

রান্নাঘরে স্ত্রীর গলাকাটা ও শয়নকক্ষে স্বামীর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার | বাংলাদেশ

<![CDATA[

দিনাজপুর শহরের মুন্সিপাড়ায় এক আইনজীবীর বাড়িতে মধ্যরাতে স্বামী-স্ত্রীর মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। স্বামী মজিবর রহমানকে ফাঁস লাগানো এবং স্ত্রী সুরাইয়া বেগমকে পাশের রান্নাঘরে গলাকাটা অবস্থায় পাওয়া গেছে। ৯৯৯-এ খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহ উদ্ধার করে। এ ঘটনার রহস্য উন্মোচনে সিআইডির ক্রাইম সিনের ফরেনসিক বিভাগ এবং পিবিআইয়ের সহায়তা নিচ্ছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) রাতে মুন্সিপাড়ায় ফাতেমা বীথিতে (বাড়ি) গিয়ে ওই দম্পতির মরদেহ উদ্ধার করে কোতোয়ালি থানা পুলিশ।

নিহতরা হলেন: স্বামী মজিবর রহমান ও তার স্ত্রী সুরাইয়া বেগম। মজিবর শহরের পশ্চিম বালুয়াডাঙ্গার রহিম উদ্দিন আহমেদের ছেলে।

প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে, তাদের হত্যা করা হয়েছে। দুজনের মধ্যে শয়নকক্ষে ফাঁসিতে ঝুলন্ত অবস্থায় পাওয়া গেছে স্বামী মজিবর রহমানের মরদেহ। স্ত্রী সুরাইয়া বেগমকে পাশের রান্নাঘরে জবাই করে হত্যা করা হয়েছে।

নিহতের একমাত্র সন্তান সিরাজুল ইসলাম জানান, তার বাবা-মার এভাবে মৃত্যুর কোনো কারণ জানা নেই। বাড়ির মালিক অ্যাডভোকেট নিলুফার ইয়াসমিন মোবাইলে তাকে বাবা-মায়ের মৃত্যুর খবর জানান।

আরও পড়ুন: চাকরি দেয়ার নামে নেয়া অর্থ ফেরত চাওয়ায় খুন

বাবা-মায়ের মৃত্যুর খবর শুনে শোকে মুহ্যমান ছেলে সিরাজুল ইসলাম জানান, প্রায় ১৫ বছর ধরে ঘটনাস্থল ফাতেমা বীথিতে কর্মরত ছিলেন তার বাবা মজিবর রহমান।

এ বিষয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মমিনুল করিম বলেন, ফরেনসিক এবং ময়নাতদন্তের রিপোর্ট হাতে আসার পর জোড়া লাশের রহস্য জানা যাবে। তবে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে মনোমালিন্যের জেরে এ ঘটনা ঘটেছে কি না, তা-ও খতিয়ে দেখছেন তারা।

রহস্য উদ্ঘাটনে সিআইডির ক্রাইম সিনের ফরেনসিক বিভাগ এবং পুলিশ ইনভেস্টিগেশন ব্যুরোর সহায়তায় আলামত সংগ্রহ শেষে সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *