Skip to content

রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতায় ভারসাম্য আনা হবে: বিএনপি

বেনার নিউজ:

ক্ষমতায় গেলে রাষ্ট্র কাঠামো সংস্কারের পরিকল্পনা অনুযায়ী সংবিধান পরিবর্তন করে রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার মধ্যে ভারসাম্য নিশ্চিত করবে বলে ঘোষণা দিয়েছে বাংলাদেশের প্রধান বিরোধী দল বিএনপি।

বুধবার দুপুরে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকার নয়াপল্টনে আয়োজিত সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা বলেন।

‘গণতন্ত্র হত্যা দিবস’ ও গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ১০ দফা দাবি আদায়ে ঢাকা মহানগর বিএনপি এ সমাবেশের আয়োজন করে।

সংবিধানের চতুর্থ সংশোধনীর মাধ্যমে ১৯৭৫ সালের ২৫ জানুয়ারি দেশে একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা হয়েছিল। এই দিনটিকে বিএনপি গণতন্ত্র হত্যা দিবস হিসেবে পালন করে আসছে।

প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতা নির্ভর বাংলাদেশে বিএনপি এমন দিনে ক্ষমতার ভারসাম্যের বিষয়ে আওয়াজ তুলল যেদিন দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল।

ফখরুল বলেন, “রাষ্ট্রপতি নির্বাচন? কোন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন? যে রাষ্ট্রপতির কোনো ক্ষমতা নেই, সেই রাষ্ট্রপতি! রাষ্ট্রপতি পদটির প্রতি আমাদের গভীর সম্মান বোধ আছে। কিন্তু সেই রাষ্ট্রপতি দিয়ে কী হবে—যিনি কিছুই করতে পারেন না।”

বর্তমান ব্যবস্থায় রাষ্ট্রপতি নিরপেক্ষভাবে দায়িত্ব পালন করতে পারেন না দাবি করে তিনি বলেন, “রাষ্ট্র কাঠামো মেরামতে আমাদের যে রূপরেখা ইতোমধ্যে প্রকাশ করেছি, তাতে আমরা বলেছি, রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রীর ক্ষমতার মধ্যে এমন ভারসাম্য আনতে হবে যাতে বাংলাদেশ রাষ্ট্রকে একটি কল্যাণমুখী রাষ্ট্রে পরিণত করা সম্ভব হয়।”

রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ১৯ ফেব্রুয়ারি

বাংলাদেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি নির্বাচন আগামী ১৯ ফেব্রুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন সিইসি হাবিবুল আউয়াল।

বুধবার ঢাকায় নির্বাচন ভবনে তিনি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেন।

সিইসি জানান, রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ ১২ ফেব্রুয়ারি এবং তা যাচাই-বাছাই হবে ১৩ ফেব্রুয়ারি। মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ তারিখ ১৪ ফেব্রুয়ারি।

এর আগে মঙ্গলবার আইন অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি নির্বাচন নিয়ে আলোচনা করতে জাতীয় সংসদের স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন সিইসি হাবিবুল আউয়াল।

বাংলাদেশের সংবিধানের ১২৩ এর ১ অনুচ্ছেদ অনুযায়ী রাষ্ট্রপতির মেয়াদ-সমাপ্তির ৯০ থেকে ৬০ দিন আগে শূন্য পদ পূরণের জন্য নির্বাচন অনুষ্ঠানের নির্দেশনা রয়েছে। সংসদ সদস্যদের ভোটে পাঁচ বছরের জন্য একজন রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হন।

সর্বশেষ দুটি রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ মনোনীত মো. আবদুল হামিদ নির্বাচিত হয়েছেন। তাঁর মেয়াদ শেষ হবে আগামী ২৩ এপ্রিল। নিয়ম অনুযায়ী, আগামী ২৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে রাষ্ট্রপতি নির্বাচন করতে হবে কমিশনকে।

১৯৯১ সালে বাংলাদেশে সংসদীয় সরকার ব্যবস্থা চালুর পর ওই বছরই শুধু রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয়েছিল।

বর্তমান সংসদে আওয়ামী লীগের নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকায় তাদের প্রার্থীই দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হবেন, তা অনেকটা নিশ্চিত।

আসন্ন রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে যদি একাধিক প্রার্থী থাকেন তবে “অবশ্যই নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে” জানান সিইসি। রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে সিইসি নির্বাচন কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করে থাকেন।

৪ ফেব্রুয়ারি সরকার বিরোধীদের সমাবেশ

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের দমন-পীড়ন ও নির্যাতনের প্রতিবাদ, নেতা-কর্মীদের নিঃশর্ত মুক্তি, বিদ্যুৎ ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য কমানোসহ ১০ দফা দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি দেশব্যাপী বিভাগীয় সদরে সমাবেশ করবে বিএনপি।

বুধবারের সমাবেশে বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

ফখরুল বলেন, “সরকার কোভিড পরিস্থিতি ও ইউক্রেন-রাশিয়া যুদ্ধের অজুহাত দিয়ে এলেও নিজেদের লুটপাট নিয়ে কিছুই বলছে না।”

সরকারের সময় শেষ দাবি করে ফখরুল বলেন, “আওয়ামী লীগের পতন না ঘটানো পর্যন্ত বিএনপি’র আন্দোলন চলবে।”

বিএনপি ছাড়াও এদিন যুগপৎ আন্দোলনের চতুর্থ কর্মসূচি হিসেবে ঢাকার বিভিন্ন পয়েন্টে সমাবেশের আয়োজন করে সরকারবিরোধীরা।

জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে আয়োজিত সমাবেশ থেকে আগামী ৪ ফেব্রুয়ারি সমাবেশের ঘোষণা দেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।

রাজপথে ছিল আওয়ামী লীগও

বিএনপিসহ কমপক্ষে ৩০টি রাজনৈতিক দল ও জোট যখন রাস্তায় সমাবেশ করছিল সে সময় একাধিক স্থানে সমাবেশ ও কর্মসূচি পালন করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগও।

গত মঙ্গলবার গণঅভ্যুত্থান দিবস উপলক্ষে বুধবার ঢাকা মহানগর দক্ষিণ আওয়ামী লীগ রাজধানীর বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ের দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে আয়োজন করে।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ অনুষ্ঠান ছিল রাজধানীর বনানী এলাকায়। এছাড়া ঊনসত্তরের গণঅভ্যুত্থান দিবস উপলক্ষে শাহবাগ চত্বরে সভা করে ছাত্রলীগ।

দলীয় কার্যালয়ের সামনের সমাবেশে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছে, “বিএনপির চলমান সরকারবিরোধী আন্দোলন জোয়ার থেকে ভাটার দিকে যাচ্ছে।”

তিনি বলেন, “বিএনপি সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে আন্দোলন না করে গরুর হাটের আন্দোলন করেছে। তাদের আন্দোলন জোয়ার থেকে ভাটার দিকে যাচ্ছে।”

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *