Skip to content

লেপার্ড-আব্রাম ট্যাংক ধ্বংসে পুরস্কার ঘোষণা | আন্তর্জাতিক

লেপার্ড-আব্রাম ট্যাংক ধ্বংসে পুরস্কার ঘোষণা | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

রাশিয়ার বিরুদ্ধে যুদ্ধে সামরিক সহায়তা হিসেবে ইউক্রেনকে অত্যাধুনিক লেপার্ড ২ ও এম১ আব্রাম ট্যাংক দেয়ার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপীয় দেশগুলো। সবমিলিয়ে ৩২১টি ট্যাংক পাচ্ছে কিয়েভ। আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই এসব ট্যাংক ইউক্রেনে এসে পৌঁছাবে।

এদিকে ইতোমধ্যে এসব ট্যাংক ধ্বংস করার বিনিময়ে রুশ সৈন্যদের জন্য পুরস্কার ঘোষণা করেছে রাশিয়ার উরাল অঞ্চলভিত্তিক বৈদ্যুতিক সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী কোম্পানি ফোরেস।

রোববার (২৯ জানুয়ারি) এক বিজ্ঞপ্তিতে কোম্পানি জানায়, রুশ সেনারা যদি লেপার্ড ২ বা এম১ আব্রাম ট্যাংক দখল কিংবা ধ্বংস করতে পারে তাহলে ট্যাংক প্রতি নগদ ৫০ লাখ রুবল পুরস্কার দেয়া হবে। বাংলাদেশি মুদ্রায় যা ৭৬ লাখ ৩৭ হাজার টাকার সমান।

যুক্তরাষ্ট্র নেতৃত্বাধীন সামরিক জোট ন্যাটোয় যোগদান ঠেকাতে গত বছরের (২০২২) ২৪ জানুয়ারি ইউক্রেনে সামরিক অভিযান শুরু করে রুশ বাহিনী। সেই অভিযান শুরুর পর থেকে এ পর্যন্ত ইউক্রেনকে শত শত কোটি ডলারের সামরিক সহায়তা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র ও ইউরোপ।

আরও পড়ুন: ন্যাটোর সদস্য হিসেবে ফিনল্যান্ডকে মানবে তুরস্ক, সুইডেনকে নয়

তারই ধারাবাহিকতায় সবশেষ গত সপ্তাহে লেপার্ড ২ ও এম১ আব্রাম অত্যাধুনিক শক্তিশালী ট্যাংক সরবরাহের ঘোষণা দেয়া হয়েছে। 

ইউরোপীয় প্রযুক্তিতে তৈরি লেপার্ড২ ট্যাংক ব্যবহার করে ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলো। অন্যদিকে এম১ আব্রাম ট্যাংক তৈরি হয়েছে মার্কিন প্রযুক্তিতে।

আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমগুলোর প্রতিবেদন মতে, আগামী কয়েক সপ্তাহের মধ্যে ১৪টি করে মোট ২৮টি লেপার্ড ২ ট্যাংক পাঠাতে সম্মত হয়েছে জার্মানি ও পোল্যান্ড। আর একই সময়সীমার মধ্যে দেশটিকে ৩০ থেকে ৫০টি এম১ আব্রাম ট্যাংক পাঠাবে যুক্তরাষ্ট্র।

যুক্তরাষ্ট্র ও তার পশ্চিমা মিত্ররা ইউক্রেনে ট্যাংক পাঠানোর ঘোষণায় কঠোর হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাশিয়া। দেশটির প্রেসিডেন্টের কার্যালয় ক্রেমলিনের মুখপাত্র দিমিত্রি পেসকভ বলেছেন, এই ট্যাংক সহায়তা যুদ্ধের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দেবে ও শিগগিরই রুশ সেনারা সেসব ট্যাংক সম্পূর্ণ ধ্বংস করে ফেলতে সক্ষম হবে।

আরও পড়ুন: ইউক্রেনকে যুদ্ধবিমান দেবে না জার্মানি

পেসকভের সেই ঘোষণারই যেন প্রতিধ্বনি পাওয়া গেল ফোরেস কোম্পানির বিজ্ঞপ্তিতে। সেখানে বলা হয়েছে, ইউক্রেনে যুদ্ধের মাত্রা বাড়াতে ‘সীমাহীন’ অস্ত্র সরবরাহ করার পরিকল্পনা নিয়ে মাঠে নেমেছে ন্যাটো। গত এক বছরে অবশ্য পশ্চিমা দেশগুলো থেকে সহায়তা হিসেবে আসা শত শত অস্ত্রের ডিপো ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে রুশ বাহিনী।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *