Skip to content

শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে হত্যা চেষ্টা | বাংলাদেশ

শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে গৃহবধূকে হত্যা চেষ্টা | বাংলাদেশ

<![CDATA[

নারায়গঞ্জের ফতুল্লায় পারিবারিক ঝগড়ার জেরে সাবিনা (২৫) নামে এক গৃহবধূর শরীরে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে শ্বশুরবাড়ির লোকজনদের বিরুদ্ধে।

আগুনে দগ্ধ সাবিনাকে রাজধানির শেখ হাসিনা জাতীয় বার্ণ এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে সদর উপজেলার ফতুল্লা থানাধীন মধ্য ইসদাইর বাজার সংলগ্ন এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।
 
এ ঘটনায় নির্যাতিত সাবিনার ভাই বিল্লাল হোসেন বাদী হয়ে সাবিনার শ্বশুরবাড়ির তিনজনকে আসামি করে ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা করেছেন। একই দিন রাতে দায়ের করা মামলায় পুলিশ এরইমধ্যে দুই আসামি সাবিনার দেবর নয়ন ও তার স্ত্রী আনমনাকে গ্রেফতার করেছে।

আরও পড়ুন: ধর্ষণের পর হত্যা, গুম করতে মরদেহ ফেলল নদীতে

মামলার এজাহারে বাদী উল্লেখ করেন, ১৩ জানুয়ারি দুপুর ১২টার দিকে পারিবারিক তুচ্ছ বিষয়কে কেন্দ্র করে ঝগড়া বিবাদের এক পর্যায়ে সাবিনাকে তার দেবর নয়ন, নয়নের স্ত্রী আনমনা ও আরেক দেবর শরীফ নিঃশর্তে শ্বশুরবাড়ি থেকে চলে যেতে বলে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করলে দুই দেবর ও জা মিলে সাবিনার শরীরের কাপড়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন ধরিয়ে দেয়।

 

 এ সময় দগ্ধ সাবিনা ও তার স্বামী পারভেজের ডাক চিৎকারে স্থানীয়রা ছুটে এসে আগুন নেভায়। পরে সাবিনাকে সদরের নারায়ণগঞ্জ জেনারেল (ভিক্টোরিয়া) হাসপাতালে নিয়ে গেলে ডাক্তাররা তাকে ঢাকা মেডিকেলে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেন। বর্তমানে সাবিনা আশংকাজনক অবস্থায় রাজধানির শেখ হাসিন জাতীয় বার্ণ এন্ড প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটে চিকিৎসাধীন রয়েছেন। আগুনে তার শরীরের ৭৫ শতাংশ পুড়ে গেছে। 

এ ঘটনায় সাবিনার ভাই বিল্লাল হোসেনের দায়ের করা মামলায় আসামি করা হয়- সাবিনার দুই দেবর শরীফ (২৫), নয়ন (৩৫) ও নয়নের স্ত্রী আনমনা (২৮) কে।

বোনের উপর নির্যাতন ও হত্যার চাষ্টার ঘটনার ন্যায়বিচার দাবি করে বাদী বিল্লাল হোসেন বলেন, রোগীর অবস্থা আশংকাজনক। আমি আসামিদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

আরও পড়ুন: ধর্ষণের পর হত্যা, এক সপ্তাহ পর ভাসমান মরদেহ উদ্ধার

তিনি জানান, উল্লেখিত আসামিরা এর আগেও একাধিকবার সাবিনা ও তার স্বামী পারভেজকে বাড়ি থেকে বের করে দেয়ার জন্য একাধিকবার ঝগড়া ও মারধর করেছিল।

এ ব্যাপারে ফতুল্লা মডেল থানার উপ পরিদর্শক (এসআই) নজরুল ইসলাম জানান, ইতোমধ্যে দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অপর এক আসামিকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *