Skip to content

‘হ্যারি, তুমি যাদের হত্যা করেছ তারা দাবার ঘুঁটি নয়’ | আন্তর্জাতিক

‘হ্যারি, তুমি যাদের হত্যা করেছ তারা দাবার ঘুঁটি নয়’ | আন্তর্জাতিক

<![CDATA[

নিজের আত্মজীবনীতে ২৫ তালেবানকে হত্যার কথা স্বীকার করে বিপাকে পড়েছেন ব্রিটিশ প্রিন্স হ্যারি। এবার তার বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ এনেছে আফগানিস্তানের তালেবান সরকার। একজন উচ্চপদস্থ কর্মকর্তার অভিযোগ, নিরীহ আফগানদের হত্যা করেছেন হ্যারি।

 শুক্রবার (৬ জনুয়ারি) আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরাকে তালেবান নেতা আনাস হাক্কানি বলেছেন, ‘আমরা পরীক্ষা করে দেখেছি যে প্রিন্স হ্যারি যে দিনগুলোতে ২৫ তালেবান যোদ্ধাকে হত্যার কথা উল্লেখ করেছেন, হেলমান্দে এমন কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। এটা স্পষ্ট যে বেসামরিক এবং সাধারণ মানুষ টার্গেট করা হয়েছিল।’

 

তিনি আরও বলেন, ‘প্রিন্স হ্যারির এ মন্তব্য আফগানিস্তানে ২০ বছরে পশ্চিমা সামরিক বাহিনীর অনেক যুদ্ধাপরাধের একটি অংশ। তারা যে অপরাধ করেছে, তার সম্পূর্ণ চিত্র প্রকাশ পায়নি। আনাস হাক্কানি বলেন, “মিস্টার হ্যারি! তুমি যাদের হত্যা করেছ, তারা দাবার ঘুঁটি ছিল না, তারা মানুষ ছিল।’ আনাস হাক্কানি টুইটারে এক পোস্টে লিখেছেন, “তুমি যা বলেছ তা সত্য। আমাদের নিরীহ জনগণ তোমার সৈনিক, সামরিক ও রাজনৈতিক নেতাদের কাছে দাবার ঘুঁটি ছিল। তবু তুমি সেই ‘খেলায়’ হেরে গেছ।”

 

২০ বছর ধরে আফগানিস্তান দখলে রাখা মার্কিন নেতৃত্বাধীন ন্যাটো সৈন্য প্রত্যাহারের পর তালেবান ২০২১ সালের আগস্টে ক্ষমতায় ফিরে আসে। যুদ্ধের সময় হাজার হাজার আফগান, যাদের একটি বড় সংখ্যক বেসামরিক নাগরিক নিহত ও আহত হয়েছিল। যুদ্ধের প্রভাব থেকে দেশ এখনও বের হতে পারেনি।

 

এদিকে  তালেবানের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র আবদুল কাহার বলখিও প্রিন্স হ্যারির মন্তব্যের সমালোচনা করেছেন। তিনি বলেছেন, আফগানিস্তানের পশ্চিমা দখলদারিত্ব সত্যিই মানবেতিহাসে একটি বিশ্রী মুহূর্ত। প্রিন্স হ্যারির মন্তব্যগুলো দখলদার বাহিনীর হাতে আফগানদের হত্যার অতি ক্ষুদ্র অংশ প্রকাশ পেয়েছে। তারা কোনো জবাবদিহি ছাড়াই নিরপরাধকে হত্যা করেছে।

 

আরও পড়ুন: আফগানিস্তানে ২৫ জনকে হত্যার কথা স্বীকার প্রিন্স হ্যারির

 

ব্র্রিটেনের রাজা তৃতীয় চালর্স ও প্রিন্সেস ডায়ানার ছোট ছেলে প্রিন্স হ্যারি ব্রিটিশ সেনাবাহিনীতে কাজ করার সময় ২০১২-১৩ সালে আফগানিস্তানে ফরোয়ার্ড এয়ার কন্ট্রোলার এবং পরে পাইলট হিসেবে কাজ করেছেন। এ সময় তার হাতে অনেকে মারা যান।

 

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম টেলিগ্রাফের প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, হ্যারি তার লিখিত বইয়ে স্বীকারোক্তি দিয়েছেন, যুদ্ধের সেই উত্তপ্ত সময়ে তিনি সেই ২৫ জনকে ‘মানুষ’ হিসেবে বিবেচনা করেননি; বরং তাদের ‘দাবার ঘুঁটি’ হিসেবে মনে করেছিলেন। যাদের কেবল দাবার বোর্ড থেকে সরিয়ে নেয়া হয়েছিল হত্যা করার মাধ্যমে। 

 

স্পেয়ার নামে প্রিন্স হ্যারির আত্মজীবনী আগামী ১০ জানুয়ারি বিশ্বব্যাপী প্রকাশিত হবে। যেখানে রাজপরিবারের অনেক খবর প্রকাশ পাবে বলেই ধারণা করা হচ্ছে।

]]>

সূত্র: সময় টিভি

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *